GOVT SCHEME

Life Certificate – সার্টিফিকেট নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ খবর! তাড়াতাড়ি এই কাজ করুন, কী কী লাগবে দেখুন

এটি প্রতিবছর এমপ্লয়ীজ পেনশন স্কীমের সদস্যদের জমা করতে হয়। বর্তমানে এই শংসাপত্রটি ডিজিটাল মাধ্যমেও জমা করতে পারা যায়। তবে অফলাইনের মাধ্যমে

Advertisement
   

Life Certificate – পেনশন ভোগীদের জন্য এক গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো লাইফ সার্টিফিকেট অর্থাৎ জীবন শংসাপত্র। আগে এটি অফলাইনের মাধ্যমে হলেও এখন ডিজিটালইও এই লাইফ সার্টিফিকেট জমা করা যায় কারণ এখন সমস্তটাই ডিজিটাল মাধ্যমকেই প্রাধান্য দেওয়া হচ্ছে। এই লাইফ সার্টিফিকেট অনলাইনেও তৈরি করা যায়। আসুন এই সমস্তটাই জেনে নিই আজকের প্রতিবেদনে বিস্তারিতভাবে সাথে জানব লাইফ সার্টিফিকেটের (Life Certificate) গুরুত্বও।

Advertisement

নতুন Life Certificate কি ভাবে আবেদন করবেন?

অনলাইনের মাধ্যমে লাইফ সার্টিফিকেট তৈরি করা সম্ভব তবে তার জন্য প্রয়োজন বেশ কিছু নথি। ঘরে বসে মোবাইলের মাধ্যমেও অনায়াসে এই লাইফ সার্টিফিকেট তৈরি করে ফেলতে পারবেন। পেনশন ভোগীদের জীবনে লাইফ সার্টিফিকেটের গুরুত্ব অপরিসীম। আমাদের দেশে কোটি কোটি মানুষ রয়েছেন যারা ইপিএফ ওর সদস্য, তাঁরা প্রত্যেকেই পেনশনের সুবিধা পেয়ে থাকেন এবং এই ইপিএফও সদস্যরা যাতে ইপিএস স্কিমের মাধ্যমে পেনশনের সুবিধা পান তার জন্যই তাদের প্রয়োজন এই লাইফ সার্টিফিকেট অর্থাৎ তাদের বেঁচে থাকার প্রমাণ পত্র।

WhatsApp Group Join Now
Telegram Group Join Now  
Advertisement

এটি প্রতিবছর এমপ্লয়ীজ পেনশন স্কীমের সদস্যদের জমা করতে হয়। বর্তমানে এই শংসাপত্রটি ডিজিটাল মাধ্যমেও জমা করতে পারা যায়। তবে অফলাইনের মাধ্যমে পেনশন ডিস্ট্রিবিউটর ব্যাংক, ভারতীয় পোস্ট অফিস, পোস্টম্যান ওমান অ্যাপ বা আইপিপি কমন সার্ভিস সেন্টারের মাধ্যমেও জমা করতে পারেন।

Advertisement

আরও পড়ুন – Railway Recruitment – ভারতীয় রেলের নতুন কর্মী নিয়োগ ১২০২ শূন্যপদে, আবেদন সম্পর্কে বিস্তারিত জানুন ‌

লাইভ সার্টিফিকেট জমা দেওয়ার রয়েছে নির্দিষ্ট একটি সময়সীমা। ৬০ থেকে ৮০ বছর বয়সী পেনশনভীরা এই জীবন শংসাপত্র জমা দিতে পারেন ১লা নভেম্বর থেকে ৩০ নভেম্বরের মধ্যে। ৮০ ঊর্ধ্বে যে সমস্ত সুপার সিনিয়র সিটিজেন রয়েছেন তাঁরা তাদের জীবনশংসাপত্র জমা দিতে পারবেন ১লা অক্টোবর থেকে।

Life Certificate -এর জন্য কী কী লাগবে?

যে সমস্ত পেনশন রোগীদের এখনো জীবন শংসাপত্র নেই তাঁরা অনলাইনের মাধ্যমে আবেদন করতে পারবেন তার জন্য প্রয়োজন:
ক) রেশন কার্ড ।
খ) আধার কার্ড ।
গ)প্যান কার্ড ।
ঘ) মোবাইল নম্বর ।
ঙ) ঠিকানার প্রমাণপত্র।
চ)ইনকাম সার্টিফিকেট।
ছ) ব্যাংক পাসবুক।
জ)কাস্ট সার্টিফিকেট।
ঞ) ইমেল আইডি।

অনলাইনে আবেদন পদ্ধতি

প্রথমেই অফিসিয়াল ওয়েবসাইটের হোম পেজে যেতে হবে। সেখানে গিয়ে লাইফ সার্টিফিকেট অপশনে ক্লিক করলেই অপশন দেখতে পাবেন পিসি বা মোবাইল সফটওয়্যারের। সেখানে লাইফ সার্টিফিকেট বানাতে চান এই সফটওয়্যারটি ডাউনলোড করতে হবে সফটওয়্যারটি ইন্সটল করার পর ক্লিক করলে ড্যাশবোর্ডে দেখা যাবে অনলাইন লাইভ সার্টিফিকেট তৈরি করার আবেদন পত্রটি। সেটিকে সঠিকভাবে পূরণ করতে হবে এবং তার সাথে প্রয়োজনীয় নথি গুলি স্ক্যান করে আপলোড করতে হবে এবং এই আবেদন পত্রটির একটি প্রিন্ট আউট অবশ্যই নিতে হবে।

আরও পড়ুন – Adhaar Card Update – ১৪ জুন পেরোতেই বাতিল হবে সমস্ত পুরনো আধার কার্ড? কি জানাচ্ছে UIDAI?

অফলাইনে আবেদনের পদ্ধতি: অফলাইনের মাধ্যমে যদি কেউ লাইফ সার্টিফিকেট বানাতে চান সেক্ষেত্রে তাঁকে প্রথমেই যেতে হবে পাবলিক সার্ভিস সেন্টারে, সেখানে গিয়ে জীবন শংসার পত্রের জন্য আবেদন করতে হবে। তার সাথে জমা দিতে হবে কিছু গুরুত্বপূর্ণ নথি ও আবেদন পত্র জমা দিতে হবে। জীবন শংসার পত্রের জন্য আবেদন পাবলিক সার্ভিস সেন্টার অপারেটর দ্বারাই করা হবে।

সেখান থেকেই দেওয়া হবে আপনাকে জীবনশংসাপত্রের একটি অনুলিপি, যেটি অতি যত্ন সহকারে আপনাকে রেখে দিতে হবে এবং প্রতিবছর তা জমা দিতে হবে। আপনার জীবিত থাকার প্রমাণপত্র স্বরূপ। তাই আজই যদি পেনশনভোগী হয়ে থাকেন লাইফ সার্টিফিকেট সঠিক সময় জমা দিন এবং নিজের পেনশনকে নিরাপদ করুন। যাদের লাইফ সার্টিফিকেট নেই তাঁরা আজই নিকটবর্তী পাবলিক সার্ভিস সেন্টারে যোগাযোগ করুন এবং অতিসত্বর ব্যবস্থা করুন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *